fbpx

Career in Hospitality Management

#CareerInHotelManagement

পর্যটন শিল্প এখন রমরমা। দেশে তৈরি হচ্ছে আন্তর্জাতিক মানের হোটেল-মোটেল। বাড়ছে দক্ষ কর্মীর চাহিদা। দেশের বাইরেও আছে লোভনীয় চাকরির হাতছানি। তাই এইচএসসি পাসের পর ভর্তি হতে পারেন হোটেল ম্যানেজমেন্টে (#HotelManagement)। পর্যটন বিষয়ে পড়তে চাইলে এইচএসসি পাস এবং ভালো ইংরেজি বলায় পটু হতে হবে। সৌন্দর্যের চেয়ে এখানে ভালো কাজ জানাটাই গুরুত্বপূর্ণ। তবে তারকা হোটেলগুলোর কিছু কিছু বিভাগে শারীরিক গঠনকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়।

হোটেল ও ট্যুরিজম পেশার দায়িত্ব

এখনকার পাঁচতারা হোটেল মানেই যেন একটা ছোটখাটো শহর। গোটা ছয় রেস্তোরাঁ ২৪ ঘণ্টা খোলা, কফিশপ, কনফেকশনারি, সুইমিং পুল, ডিস্কো, কনফারেন্স রুম, বুটিক, টেনিস কোট কিছুই বাদ নেই। তাই এসব হোটেল চালাতে গেলে প্রয়োজন পেশাদার কর্মীর। কারণ একটি আধুনিক পাঁচতারা হোটেলে বেশকিছু বিভাগ থাকে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য ফুড অ্যান্ড বেভারেজ, হাউস কিপিং, পাবলিক রিলেশন, মার্কেটিং, ফিনানশিয়াল ম্যানেজমেন্ট, হোটেলের ফ্রন্ট অফিস ম্যানেজমেন্টসহ সব জায়গায় হোটেল ম্যানেজমেন্ট পাস করা ছাত্র-ছাত্রীদের কদর।

পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণ

সর্ব প্রথম ২০০৭ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়ে পাঠদান শুরু হওয়ার পর অনেক সরকারি ও বেসরকারিসহ একাধিক ট্রেনিং সেন্টারে এ বিষয়ে পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণ দেয়া হয়।

এছাড়া মর্নিংটন কলেজ অব বিজনেস (www.mucbd.com) কনফেডারেশন অব ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি (সিটিএইচ), ইউকের CTH – Confederation of Tourism and Hospitality অধীনে ডিপ্লোমা ইন হোটেল ম্যানেজমেন্ট ও ডিপ্লোমা ইন ট্যুরিজম ম্যানেজমেন্ট বিষয়ক স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি বিভিন্ন কোর্স পরিচালনা করে আসছে। বিশ্বব্যাপী ট্যুরিজম শিল্পের প্রসারের ফলে বর্তমানে হোটেল ম্যানেজমেন্ট একটি আকর্ষণীয় পেশা, ফলে সৃষ্টি হয়েছে উদ্যোক্তা হওয়ার সুযোগ। মর্নিংটনে রয়েছে ১ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা ইন হোটেল ম্যানেজমেন্টের পাশাপাশি ৩ মাস মেয়াদি ইন্টার্নশিপ, যা সম্পন্ন করে ইন্টার্নশিপের মাধ্যমে মূলত অভিজ্ঞতার পাশাপাশি চাকরি প্রাপ্তিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে। পরবর্তীতে অ্যাডভান্স ডিপ্লোমা ও ব্যাচেলর ডিগ্রি অর্জনের সুযোগ রয়েছে।

শিক্ষা পদ্ধতি : এ শিক্ষা ব্যবস্থায় সিটিএইচের তত্ত্বাবধানে ফাইনাল পরীক্ষাগুলো অনুষ্ঠিত হয়। প্রশ্নপত্র প্রণয়ন ও উত্তরপত্র পরীক্ষিত হয় যুক্তরাজ্যে। এর যাবতীয় ক্লাস অনুষ্ঠিত হয় মর্নিংটনে।
আইটি স্কীলের পাশাপাশি ইংরেজীতে দক্ষতার জন্য নিয়মিত ক্লাস নেওয়া হয়।
সার্টিফিকেট : আন্তর্জাতিক স্বীকৃত যুক্তরাজ্যের সিটিএইচ কর্তৃক ডিপ্লোমা/অ্যাডভান্স ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়।

ক্রেডিট ট্রান্সফার : যুক্তরাজ্যসহ বিশ্বের সহস্রাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রেডিট ট্রান্সফার করার সুযোগ রয়েছে।
চাকরি সহায়তা : কোর্স সম্পন্নকৃত শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন হোটেলে ইন্টার্নশিপ নিশ্চিতের পাশাপাশি চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে সহায়তা প্রদান করে থাকে।

ইন্টার্নশিপ সহায়তা : সফলভাবে ডিপ্লোমা সম্পন্নকারীরা দেশের স্বনামধন্য হোটেলে ৩ মাসের ইন্টার্নশিপের সহায়তা পেয়ে থাকে।

ভর্তি যোগ্যতা : যে কোনো গ্রুপে এইচএসসি/ও-লেভেল অথবা সমমান পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করতে পারে।

স্কলারশিপ সুবিধা : মেধাবী ও অসচ্ছলদের জন্য রয়েছে ১০ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত ড্যাফোডিল ফাউন্ডেশন কর্তৃক স্কলারশিপের সুবিধা। মুক্তিযোদ্ধা পোষ্য ও নারী শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে বিশেষ স্কলারশিপ সুবিধা।

ভর্তি সেশন : বছরে ৪টি সেশনে (মার্চ, জুন, সেপ্টেম্বর ও ডিসেম্বর) ভর্তি কার্যক্রম পরিচালিত হয়। বর্তমানে ডিসেম্বর-জানুয়ারি সেশনে ভর্তি চলছে। চাকরিজীবীরা সান্ধ্যকালীন ব্যাচে অংশগ্রহণ করতে পারেন।

যোগাযোগ :মর্নিংটন কলেজ অব বিজনেস
পয়েন্ট ভিউ, ৩য় তলা, আম্বরখানা, সিলেট।
মোবাইল নং ০১৭০৪১৯৮৮৬২, ০১৭৬৪২২৫৫৫৫
www.mucbd.com www.cthawards.com

ভর্তির যোগ্যতা

এ বিষয়ে পড়াশোনা করতে চাইলে আপনাকে প্রথমে এইচএসসি পাস করতে হবে। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে চাইলে গ ইউনিটের অধীনে ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে হবে। কারণ এখানে এটি ব্যবসা অনুষদের বিষয় হিসেবে পড়ানো হয়। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় ও ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য এইচএসসিতে যে কোনো বিভাগ থাকলে চলবে।

পড়াশোনার খরচ

সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে পড়াশোনার খরচ একেবারেই কম। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. মুজিব উদ্দিন আহমেদ জানান, এখানে চার বছরে খরচ পড়বে মাত্র ৬০ থেকে ৭০ হাজার টাকার মতো। আর বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠানভেদে খরচ পড়বে ৪ থেকে ৬ লাখ টাকার মতো। এছাড়া ২ বছর অথবা ৩ বছর মেয়াদি ডিপ্লোমা কোর্সের জন্য প্রতিষ্ঠানভেদে আপনাকে গুনতে হবে ৮০ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত।

বিদেশে পড়াশোনা ও ক্যারিয়ার সম্ভাবনা

ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, ভারত, থাইল্যান্ড, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, পোল্যান্ড, সাইপ্রাসসহ বিভিন্ন দেশে ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজমে পড়াশোনাসহ গ্র্যাজুয়েশন করার সুযোগ রয়েছে। পর্যটন শিল্পের ওপর নির্ভর করে এসব দেশে গড়ে উঠেছে প্রচুর হোটেল রেস্টুরেন্ট, রিসোর্ট, ট্যুর কোম্পানি ও ট্রাভেল এজেন্সি। এসব দেশে এখনও দক্ষ পেশাজীবীর প্রচুর চাহিদা। এখনও পড়াশোনা এবং প্রশিক্ষণের সবচেয়ে বড় সুবিধা হল শিক্ষার পাশাপাশি ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজমে কাজ করার অফুরন্ত সুযোগ। তাই এসব দেশে বাংলাদেশ থেকে প্রচুর শিক্ষার্থী যাচ্ছে। আপনিও চাইলে প্রয়োজনীও শর্ত পূরণ করে যেতে পারেন এসব দেশে। আমাদের স্বপ্নের এ বাংলাদেশে ট্যুরিজম অ্যান্ড হোটেল ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার দিন দিন বাড়ছে। আমাদের এ শিল্পকে এগিয়ে নিতে আপনিও পারেন অবদান রাখতে।

বিশেষজ্ঞের অভিমত

প্রাচ্যের অক্সফোর্ড খ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের বিভাগীয় চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মুজিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ট্যুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিষয়টি নতুন হলেও সমাজে ও কর্মক্ষেত্রে এর ব্যাপক চাহিদা থাকায় এর প্রতি শিক্ষার্থীদের আগ্রহ দিন দিন বাড়ছে। এখানে যেমন রয়েছে পর্যাপ্ত বেতন ও সুযোগ-সুবিধা।

বেতন কেমন

প্রতিষ্ঠান ও কাজভেদে বেতন কাঠামো ভিন্ন হয়। ডিপ্লোমা কোর্স সম্পন্নকারীরা কাজ শুরু করতে হবে শিক্ষানবিশ হিসেবে। এ সময় তারকা হোটেলগুলো থেকে যাতায়াত ভাড়া বাবদ কিছু টাকা দেওয়া হয়। তবে সব হোটেলে একই রকম নিয়ম নেই। শিক্ষানবিশ শেষে শুরুতে বেতন 20 থেকে 25 হাজার টাকা হয়ে থাকে। অভিজ্ঞদের বেতন ৩৫ হাজার থেকে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত হয়। এ ছাড়া কোনো কোনো প্রতিষ্ঠানে লভ্যাংশের একটা অংশও কর্মচারীদের দেওয়া হয়।

mcb

mcb

Leave a Replay

About

We are now offering range of Courses including Diploma in Retail Management and Diploma in Logistics & Supply Chain Management. Both Courses are in high demand in Bangladesh

Recent Posts

Follow Us

Weekly Tutorial

Close Menu